রংপুরে প্রার্থী পাচ্ছে না বিএনপি | ইবিডি নিউজ

রংপুরে প্রার্থী পাচ্ছে না বিএনপি

রংপুররংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলে সময় বাকি আছে আর মাত্র সাত দিন। ২২ নভেম্বর পর্যন্ত মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত প্রধান বিরোধীদল বিএনপি মেয়র প্রার্থী হিসেবে কাউকে চূড়ান্ত করতে পারেনি। বরং দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে জয়ী হতে পারেন বা সম্মানজনক পরিমাণ ভোট পাবেন এমন যোগ্য প্রার্থীই নাকি খুঁজে পাচ্ছে না বিএনপি। তবে পাঁচ জনের একটি তালিকা তৈরি করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রসিক নির্বাচনে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীর একটি তালিকা তৈরি করে পাঠানোর জন্য বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মহানগর বিএনপির নেতাদের মৌখিক নির্দেশ দেন সোমবার (১৩ নভেম্বর)। এ কারণে মঙ্গলবার দুপুর ৩টায় নগরীর গ্র্যান্ড হোটেল মোড়ে বিএনপির কার্যালয়ে জরুরি সভা ডাকে মহানগর বিএনপি। রাত ১১টা পর্যন্ত সভা চলে। সভায় সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীদেরও ডেকে পাঠানো হয়। কারা কারা মেয়র প্রার্থী হতে চান জানতে চাওয়া হয়। সভায় মহানগর বিএনপির সভাপতি মোজাফফর হোসেনকে মেয়র প্রার্থী হওয়ার জন্য দলের নেতারা এবং সম্ভাব্য অন্য মেয়র প্রার্থীরাও অনুরোধ জানান। তবে কোনও অবস্থাতেই মেয়র পদে নির্বাচন করবেন না বলে জানান তিনি। শেষ পর্যন্ত পাঁচ জন মেয়র প্রার্থীর তালিকা চূড়ান্ত করা হয়।

যাদের নাম তালিকায় স্থান পেয়েছে তারা হলেন- জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রইছ আহাম্মেদ, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মিজু, মহানগর বিএনপির সহসভাপতি কাওসার জামান বাবলা, জেলা যুবদলের সভাপতি নাজমুল হক নাজু ও স্বেচ্ছাসেবক দলের জেলা সভাপতি আব্দুস সালাম। মঙ্গলবারের সভায় এই পাঁচ জনের তালিকা ঢাকায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিএনপি নেতা জানান, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী তার নিজ এলাকা কুড়িগ্রাম সফর শেষে বুধবার সৈয়দপুর বিমানবন্দর হয়ে ঢাকা যান। মহানগর বিএনপির নেতারা বিমানবন্দরে তার সঙ্গে দেখা করে সম্ভাব্য পাঁচ মেয়র প্রার্থীর তালিকা তার হাতে তুলে দেন।

এ ব্যাপারে জেলা যুবদলের সভাপতি ও সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী নাজমুল হক নাজুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘মেয়র প্রার্থী হিসেবে মহানগর সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেনকে অনুরোধ জানানো হলেও তিনি নির্বাচন করবেন না বলে জানিয়ে দেন। তবে আমরা যে পাঁচ জন মেয়র পদে বিএনপির প্রার্থী হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছি তাদের সবার নাম দলের মহাসচিবের কাছে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।’ একই কথা জানান রংপুর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র প্রার্থী শহিদুল ইসলাম মিজু। তিনি বলেন, ‘মহাসচিবের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা জরুরি সভা করে সেখানে সম্ভাব্য সব প্রার্থীকে ডেকে তাদের মতামত জানতে চেয়েছি। এরপর তালিকা করে নাম পাঠানো হয়েছে। তবে বিএনপির প্রার্থী আরও আগে ঘোষণা করা গেলে ভালো হতো।’ এরপরও নির্বাচনে যাকেই মনোনয়ন দেওয়া হোক না কেন তিনিই ভালো ফল করবেন বলে আশা প্রকাশ করেন এই নেতা।

তবে দলের একাধিক নেতা জানান, রংপুরে বিএনপির মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার মতো কোনও প্রার্থী নেই। তাছাড়া রংপুরে দলের অতীতের রেকর্ডও তেমন ভালো নয়। রংপুর পৌরসভা বা সিটি করপোরেশন এবং এমপি নির্বাচনে বিএনপির কোনও প্রার্থী কখনই জয়ী হতে পরেনি। সে কারণে দলের হাইকমান্ড রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ব্যাপারে অতটা আগ্রহী নয়। এ কারণেই এখন পর্যন্ত প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়নি।

তবে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মিজু বলেন, ‘রংপুরে বিএনপি অনেক শক্তিশালী দল। কিন্তু সমস্যা অন্য জায়গায়। গত প্রায় ৩ বছর ধরে রংপুরে বিএনপিকে কোনও মিছিল মিটিং করতে দেয় না পুলিশ। আমরা যদি সভা-সমাবেশ করতে না পারি, নির্বাচন কমিশন যদি সেই পরিবেশ সৃষ্টি না করে দেয় তাহলে কিভাবে প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাবো? এ সব বিষয় আমরা দলের শীর্ষ নেতাদের জানিয়েছি।’

উল্লেখ্য, এরই মধ্যে প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি রসিক নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করেছে। নির্বাচনের ইশতেহার ঘোষণার আগেই জাতীয় পার্টির নেতা এইচএম এরশাদ দলের রংপুর মহানগর শাখার সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে প্রার্থী ঘোষণা করেন। আর আওয়ামী লীগ বর্তমান মেয়র শরফ উদ্দিন আহমেদ ঝন্টু।