পুরোনো সিলেবাসের প্রশ্নে পরীক্ষা দিলো ৯৯ শিক্ষার্থীরা | ইবিডি নিউজ

পুরোনো সিলেবাসের প্রশ্নে পরীক্ষা দিলো ৯৯ শিক্ষার্থীরা

পুরানো সিলেবাসের প্রশ্নপত্রে

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ৯৯ জন শিক্ষার্থী ২০১৬ সালের পুরানো সিলেবাসের প্রশ্নপত্রে এসএসসি বাংলা দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষা দিয়েছে। শনিবার উপজেলার রামদিয়া শ্রীকৃষ্ণ শশি কমল বিদ্যাপীঠ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, শনিবার এসএসসি বাংলা দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষায় উপজেলার রামদিয়াশ্রীকৃষ্ণ শশি কমল বিদ্যাপীঠ স্কুলের পরীক্ষা কেন্দ্রের দু’টি কক্ষে ভুলক্রমে পরীক্ষার্থীদের ২০১৬ সালের পুরানো সিলেবাসের প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়। পরীক্ষার শেষ পর্যায়ে পরীক্ষার্থীরা বিষয়টি বুঝতে পেরে দায়িত্বরত শিক্ষককে জানায়। পরে বিষয়টি খতিয়ে দেখে সত্যতা পায় শিক্ষকরা। এ ঘটনায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এতে উপজেলার তারাইল, নিজামকান্দি ও সীতারামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯৯ জন পরীক্ষার্থী ভুল প্রশ্ন পত্রে পরীক্ষা দিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছে।

তারাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী কাজী নবেল জানান, কর্তৃপক্ষ যাচাই বাছাই না করে বাংলা দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষায় ২০১৬ সালের পুরানো সিলেবাসের প্রশ্নপত্র সরবরাহ করে। বিষয়টি আমরা তাৎক্ষণিক বুঝতে পারিনি। পরীক্ষার শেষ পর্যায় প্রশ্নপত্র বিভ্রাটের বিষয়টি বুঝতে পেরে শিক্ষকদের জানাই। আমরা ভাল ফলাফল নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় আছি।

ভুল প্রশ্ন সরবরাহের সত্যতা স্বীকার করে রামদিয়া শ্রীকৃষ্ণ শশি কমল বিদ্যাপীঠ কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচীব মো: শরিফুল ইসলাম বলেন, ২০১৬ সালের সিলেবাসে বাংলা দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। একটি ছাত্রী বিষয়টি বুঝতে পেরে অভিযোগ দিলে আমি তা খতিয়ে দেখে সত্যতা পাই। পরে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এস এম মাঈন উদ্দিন বলেন, ভুলক্রমে ২০১৬ সালের সিলেবাসের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা হয়েছে। দায়িত্ব অবহেলায় দোষী শিক্ষকদের শোকজ করা হবে। বিষয়টি ঢাকা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। শিক্ষার্থীদের দুশ্চিন্তার কোন কারণ নেই।